শুক্রবার , 24 মে 2019
ব্রেকিং

টাঙ্গাইলে ওবায়দুল কাদেরের হাতে লাঞ্ছিত সাংসদ ছানোয়ার!

টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) ছানোয়ার হোসেনকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার রাতে টাঙ্গাইলের যমুনা রিসোর্টের পদ্মা রেস্ট হাউসে এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাজশাহীতে কর্মীসভা শেষ করে ওবায়দুল কাদের ঢাকায় ফেরার পথে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম প্রান্তে যমুনা রিসোর্টে যাত্রাবিরতি করেন। সেখানে আগে থেকেই টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের, এমপি ছানোয়ার হোসেন, এমপি অনুপম শাহজাহান জয়সহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা স্বাগত জানানোর জন্য উপস্থিত হন। সেখানে পৌঁছানোর পর দলীয় কর্মীরা জয় বাংলা স্লোগান দিলে তিনি স্লোগান থামাতে বলেন এবং এ নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ওবায়দুল কাদেরকে সেখানে আপ্যায়নের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী। কিন্তু হাসান ইমাম শনিবার বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারত করতে টুঙ্গিপাড়া যাওয়ায় যমুনা রিসোর্টে উপস্থিত হতে পারেননি। ওবায়দুল কাদের রিসোটের পদ্মা রেস্ট হাউসে ঢুকে এমপি হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারীর উপস্থিত নেই জানতে পেরে তাকে উদ্দেশ করে গালাগাল করেন। এ সময় টাঙ্গাইল-৫ আসনের এমপি ছানোয়ার হোসেন হাসান ইমামের পক্ষ নিয়ে ওবায়দুল কাদেরকে কিছু বলতে গেলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এবং ছানোয়ার হোসেনকে তিনটি চড় ও ঘুষি মারেন। পরে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে রেস্ট হাউস থেকে বের হয়ে যান। তিনি হেঁটেই রিসোর্টের গেট পর্যন্ত আসেন। সেখানে দলীয় নেতাদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন সেতুমন্ত্রী।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ছানোয়ার হোসেন বলেন, ‘মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দলের সাধারণ সম্পাদক। তিনি আমার বড় ভাই। তিনি আমাদের শাসন করতে পারেন আবার আদরও করতে পারেন। তার বিরুদ্ধে আমার কোনো অভিযোগ নেই। তিনি যাওয়ার আগে মাথায় হাত বুলিয়ে আমাকে আদর করেছেন।’
টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের ভাই আমাদের অভিভাবক। তিনি আমাদের শাসন করেন আবার আদরও করেন। এটি একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা।’ (প্রথম আলো)

print

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.