শুক্রবার , 19 অক্টোবর 2018
ব্রেকিং

ঐতিহ্যের দেশ রাশিয়ায় ভ্রমণ

প্রাকৃতিক নৈসর্গিক সৌন্দর্যে ভরপুর বিশাল এক দেশ রাশিয়া। অনন্য বৈচিত্র্যময় প্রকৃতির অপরূপ রূপের আঁধার ও লীলাভূমি হলো উত্তর রাশিয়া। দিগন্তের এক প্রান্ত হতে অন্য প্রান্তে ঘুরে বেড়িয়ে শেষ করা যায় না।

একটা সময় ভাবা হতো উন্নত দেশে ঘুরে বেড়ানো, ভ্রমণ শুধুমাত্র উচ্চবিত্তের মধ্যে সীমাবদ্ধ। কিন্তু সময়ের পালাবদলে এখন সকলের সাধ্যের মধ্যে চলে এসেছে দেশ–বিদেশে ঘুরে বেড়ানো ও ভ্রমণ করা। ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে ভ্রমণপিপাসু মানুষের সংখ্যা। বিশ্বায়নের এ যুগে চাইলেই যেকেউ ঘুরে আসতে পারেন উন্নত বিশ্বের যেকোনো দেশে। লাখ টাকার মধ্যে সপ্তাহখানেক ঘুরে আসতে পারেন রাশিয়ায়।
পর্যটক হিসেবে রাশিয়ার ভিসাপ্রাপ্তি আর ভ্রমণ তেমন জটিল কোনো কিছু নয়। নিয়মানুযায়ী আবেদন করলে আপনি সহজেই টুরিস্ট ভিসা পেতে পারেন। এ জন্য প্রথমে রাশিয়া থেকে যেকোনো একটি অনুমোদিত টুরিস্ট ট্রাভেল এজেন্সির কাছ থেকে টুরিস্ট ভাউচার তথা আমন্ত্রণপত্র সংগ্রহ করতে হবে। এ জন্য ভ্রমণকারীর ব্যক্তিগত তথ্য, ভ্রমণ পরিকল্পনা অর্থাৎ কোন কোন শহরে ভ্রমণ করবেন এবং সম্ভাব্য কত তারিখ থেকে কত তারিখ পর্যন্ত অবস্থান করবেন, সে অনুযায়ী একটি বিবরণী প্রদান করতে হয়। এই টুরিস্ট আমন্ত্রণপত্রের জন্য আপনাকে সর্বোচ্চ ১৫০ থেকে ২০০ ডলার অর্থাৎ ১২-১৬ হাজার টাকা খরচ করতে হবে।

আমন্ত্রণপত্র পাওয়ার পর অ্যাম্বাসিতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ ভিসাপ্রাপ্তির জন্য ইন্টারভিউ প্রদান করতে হবে। ভিসা ইন্টারভিউয়ের আগে ভ্রমণকারীকে HIV টেস্ট, এক কপি রঙিন ছবি, এয়ার টিকিট অথবা বুকিং কনফারমেশন এবং ভিসা আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। উল্লেখ্য, ভিসা আবেদন ফরম অ্যাম্বাসির ভেতরে বিনা মূল্যে পাওয়া যায়। তা ছাড়াও হোটেল বুকিং ও ব্যাংক থেকে স্টেটমেন্ট অর্থাৎ সলভেন্সির কাগজ আবেদনের সঙ্গে দিলে ভিসাপ্রাপ্তির ক্ষেত্রে অনেক সহায়ক হয়। যদিও তা আবশ্যক নয়। এরপর ইন্টারভিউ দিতে হবে। ইন্টারভিউয়ের পর নির্দিষ্ট ব্যাংকে ভিসা ফি বাবদ ৪০০০/= টাকা জমা দিতে হবে। সবকিছু ঠিক থাকলে সাত দিনের মধ্যে ভিসা পাওয়া যায়। সপ্তাহে তিন দিন—রোববার, মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত আবেদন জমা নেওয়া হয়।

ভিসা ইন্টারভিউয়ের জন্য আগে থেকে কোনো সিরিয়াল দিতে হয় না। নির্ধারিত দিনে লাইনে দাঁড়িয়ে ইন্টারভিউ প্রদান করতে হয়। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো টুরিস্ট ভিসার জন্য ন্যূনতম এক মাস আগে আবেদন করতে হয়। জরুরি ভিসা দেওয়া হয় না। রাজধানী মস্কো, ঐতিহাসিক সেন্ট পিটার্সবার্গ, অবকাশযাপনকেন্দ্র সচি, কাজান, নিঝনি নভগ্রত ও সাইবেরিয়াসহ আরও অসংখ্য শহরে রয়েছে দেখার অনেক কিছু। ঘুরে বেড়ানোর জন্য সবচেয়ে ভালো সময় হলো মে থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি, জ্ঞান-বিজ্ঞান ও ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সবকিছুতে সমৃদ্ধ এক জনপদ রাশিয়া। সর্বোপরি, সব মিলিয়ে সপ্তাহখানেক ভ্রমণ করলে লাখ টাকার বেশি খরচ হবে না। চাইলেই বেড়াতে আসতে পারেন ইউরোশিয়ার তথা পৃথিবীর বৃহত্তম দেশ রাশিয়ায়। রুশ সংস্কৃতি, প্রাকৃতির সৌন্দর্য আর আতিথেয়তা প্রশস্ত করবে আপনার মন ও চিন্তার জগৎকে। পরিচিত হতে পারবেন অসংখ্য বিস্ময়ের সঙ্গে।

print

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.