শুক্রবার , 25 মে 2018
ব্রেকিং

উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতিতে- মালয়েশিয়ায় দূতাবাসে আলোচনা সভা

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া থেকে:

উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতিতে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক  আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়েছে।

বাংলাদেশের স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) স্ট্যাটাস থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরনের যোগ্যতা অর্জন করায় বৃহস্পতিবার বিকেলে দূতাবাসের হলরোমে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

রাষ্ট্রদূত মহ: শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর মো: সায়েদুল ইসলামের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, এয়ার কমডোর হুমায়ূন কবির, মিনিষ্টার রইছ হাসান সারোয়ার। কমিউনিটির পক্ষথেকে বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ি ও কমিউনিটি নেতা মকবুল হোসেন, রেজাউল করিম রেজা।

সভাপতির বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত মহ: শহীদুল ইসলাম বলেন, জাতির পিতা স্বল্পোন্নত দেশ করেছিলেন, আর জাতির জনকের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করলেন উন্নয়নশীল দেশ। আর উন্নয়নশীল দেশের এ অগ্রযাত্রা ধরে রাখতে হবে আমাদের। এ যাত্রা যেন থেমে না যায়। গর্বিত জাতি হিসাবে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, ২০১৮ সালের পর্যালোচনায় এলডিসি থেকে উত্তরণের যোগ্যতা হিসেবে মাথাপিছু আয়ের মানদন্ড ১২৩০ ডলার। বিশ্বব্যাংক প্রণীত অ্যাটলাস পদ্ধতির হিসাবে গত তিন বছরের গড় মাথাপিছু আয় ওই পরিমাণ হতে হবে। ওই পদ্ধতিতে গত তিন বছরে বাংলাদেশের গড় মাথাপিছু আয় দাঁড়িয়েছে ১২৭২ ডলার। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হিসাবে মাথাপিছু আয় আরও বেশি। বিবিএসের হিসাবে গত অর্থবছরে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় দাঁড়ায় ১৬০৫ ডলার।

আলোচনা সভায় উপস্তিত ছিলেন, দূতাবাসের ফার্ষ্ট সেক্রেটারি মো: মাসুদ হোসাইন, শ্রম শাখার প্রথম সচিব মো: হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল, পাসপোর্ট ও ভিসা শাখার প্রথম সচিব মো: মশিউর রহমান তালুকদার, কমার্শিয়াল উইং রাজিবুল আহসান, ফার্ষ্ট সেক্রেটারি তাহমিনা ইয়াছমিন, শ্রম শাখার ২য় সচিব মো: ফরিদ আহমদ। আলোচনা সভায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে  মধ্যে উপস্তিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত হোসেন পান্না, কামরুজ্জামান কামাল, আব্দুল করিম, হাজী জাকারিয়া, দাতু আক্তার হোসেন, মনিরুজ্জামান মনির,রাশেদ বাদল, শাহীন সরদার এ কামাল চৌধূরী, হুমায়ূন কবির, মামুন, শফিক চৌধূরী, শাখাওয়াত হক জোসেফ সহ রাজনৈতিক ,সামাজিক ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ছাড়াও দূতাবাসের সকল কর্ম-কর্তা ও কর্মচারি উপস্তিত ছিলেন ।   

print

মন্তব্য করুন