মঙ্গলবার , 18 ডিসেম্বর 2018
ব্রেকিং

বাংলাদেশি দেবযানী জার্মানিতে তৈরি করছেন পরিবেশবান্ধব বিমান

নবকণ্ঠ ডেস্ক

কোনো সাধারণ উড়োজাহাজ নয়, প্রথাগত জ্বালানি ছাড়া উড়তে সক্ষম এক উড়োজাহাজ নিয়ে গবেষণা চলছে জার্মানিতে। ইলেক্ট্রিক এই বিমান তৈরির পেছনে বিশ্বের খ্যাতিমান গবেষকদের সঙ্গে রয়েছেন বাংলাদেশের এক মেয়ে। জার্মানির উল্ম বিশ্ববিদ্যালয়ের​​​​ একজন গবেষক চট্টগ্রামের দেবযানী ঘোষ।

ইটভাটার ধোঁয়া, গাড়ির ধোঁয়া, কল-কারখানার ধোঁয়া। সবই পরিবেশ দূষণে বড় ভূমিকা রাখছে। পরিবেশ দূষণে ভূমিকা রয়েছে উড়োজাহাজেরও।

পরিবেশবান্ধব উড়োজাহাজ? সে আবার কী! এটা ঠিক, পরিবেশ দূষণে এক বড় ভূমিকা রাখছে বিমান। কিন্তু এই খাতে কি এমন কোনো উড়োজাহাজ ব্যবহার সম্ভব যা পরিবেশের কোনো ক্ষতি করবে না? জার্মানিতে এমন এক গবেষণায় রয়েছেন বাংলাদেশের দেবযানী ঘোষ।

ডয়চে ভেলেতে এই দেবযানীকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, হাইড্রোজেন ফুয়েল সেল ব্যাটারি সিস্টেম থেকে পাওয়া শক্তিতে চলবে হাইফোর বা এইচওয়াইফোর নামে পরিচিত উড়োজাহাজটি। এভাবে উৎপাদিত জ্বালানি পরিবেশের কোনো ক্ষতি করবে না, অর্থাৎ উড়োজাহাজ চলার সময় কার্বন ডাই অক্সাইড নিঃসরণ একেবারেই হবে না।

এমন উড়োজাহাজ পৃথিবীতে এটাই প্রথম। জার্মানির মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ডিএলআর-এর পৃষ্ঠপোষকতায় হাইফোর উড়োজাহাজ তৈরির প্রকল্পে সম্পৃক্ত রয়েছে উল্ম বিশ্ববিদ্যালয়সহ একাধিক প্রতিষ্ঠান। উল্ম বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রকল্পের নেতৃত্বে রয়েছেন প্রফেসর ইয়োসেফ ক্যালো। তার অধীনে কাজ করছেন দেবযানীর মতো বেশ কয়েকজন তরুণ গবেষক। ইতোমধ্যে সাড়া জাগিয়েছে তাদের গবেষণা।

ইতোমধ্যে সফলভাবে পরীক্ষামূলক উড়াল সম্পন্ন করেছে চার সিটের হাইফোর উড়োজাহাজটি। চলছে আরো বড় উড়োজাহাজ তৈরির কাজ। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন মনে করে, বর্তমানের যে পাঁচটি উদ্ভাবন ভবিষ্যতে বিশ্বকে রক্ষা করবে, তার একটি এই উড়োজাহাজ। গবেষকদেরও আশা, আগামী কয়েক বছরের মধ্যে স্বল্প দূরত্বে যাত্রী পরিবহনে পরিবেশবান্ধব এই উড়োজাহাজ ব্যবহার সম্ভব হবে।

print

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.