সোমবার , 20 আগস্ট 2018
ব্রেকিং

সেলিম লিটনের চাঁদাবাজির জবাব দেবে কর্মীরা -ফ্রান্স আওয়ামী লীগ 

ফ্রান্স আওয়ামী লীগকে গতিশীল   করে  আগামী নির্বাচনে বিশ্বে পরাশক্তি খ্যাত ফ্রান্সে আওয়ামী লীগ এর প্রচার ও প্রসার বৃদ্ধির জন্য ফ্রান্স আওয়ামীলীগ এর দায়িত্ব শীল চারজনের নাম ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ,সাথে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করার জন্য আরো চারজনকে দায়িত্ব দেন তিনি। প্রধানমত্রীর সিদ্ধান্তকে তোয়াক্কা না করে ৮জনের কমিটির কাউকে না জিজ্ঞাসা করে বিএনপি জামাতের কর্মীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে কমিটিতে অন্তভূর্ক্ত করে  ফেইসবুকে কমিটি প্রচার করে দলের সংবিধান কে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে  বিক্ষোব্ধ ফ্রান্স আওয়ামী লীগ এর তৃণমূল ও সিনিয়র নেতারা। ফ্রান্স আওয়ামীলীগের বেনজির আহমদ সেলিম ও মহসিন উদ্দিন খান লিটন এর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে ধরে ফ্রান্স আওয়ামীলীগ আয়োজিত কর্মী সভায় তারা সারা বিশ্বের আওয়ামীলীগের কর্মীদের কাছে প্রশ্ন রাখেন  যারা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মানেনা তারা আওয়ামীলীগ কেমনে করে/ নিঃসন্দেহে তারা তারেক জিয়ার এজেন্ট। 

অগঠনতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনের প্রতিবাদে আয়োজিত কর্মীসভায় বক্তারা  বলেন শীঘ্রই সকল কর্মীদের নিয়ে সম্মেলন হবে।  আওয়ামী লীগ কে কোন আঞ্চলিক সমিতি ও বিএনপি,র এজেন্ট হতে দেয়া হবেনা। 

ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সুনামউদ্দিন খালেকের সভাপতিত্বে এবং ফ্রান্স আওয়ামী লীগে নেতা মোহাম্মদ আতিকুজ্জামান এবং হাসান সিরাজের পরিচালনায় কর্মী সভায় উপস্থিত ছিলেন, ফ্রান্স আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন নেতা এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর নৌ কমান্ডো এনামুল হক, সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আব্দুল্লাহ আল বাকী, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা শেখ মোহাম্মদ আলী,মুক্তিযোদ্ধা  আব্দুল মতিন, ওয়াহিদ ভার তাহের, ছালেহ আহমেদ চৌধুরী, জসীম উদ্দিন ফারুক, নুরুল আবেদীন, শাহনেওয়াজ রশীদ রানা, আশরাফুল ইসলাম,ইব্রাহিম আকিল,  ,জহিরুল হক, নুরুল হক ভুইয়া,বেলাল, জাহাঙ্গীর আলম ,শরফুদ্দিন স্বপন,সহ ফ্রান্স আওয়ামী লীগের নেতৃৃবৃন্দ।

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের ব্যস্ততম বানিজ্যিক এলাকা গার দু নরের প্যারিসিয়ান  ক্যাফে  রেস্তোরায় এ কর্মী সভার আয়োজন করা হয়। দুই শতাধিক নেতা কর্মীর উপস্থিতিতে কর্মীসভার প্রারম্ভে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সকল মৃত নেতৃবৃন্দের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। ফ্রান্স আওয়ামী রীগের সৃষ্টির সময় থেকে মৃত নেতৃবৃন্দ ও তাদের আত্মীয়দের মধ্যে মরহুম লতিফ কাজী, মরহুম তোফাজ্জল হোসে ফারুক, মরহুম আব্দুল আউয়াল, মরহুম নাজিম উদ্দিন চৌধুরী বাবু, মরহুম শহীদুল আলম মানিক, মরহুম জাকির হোসেন  ভুইয়া জানু, মরহুম নজরুল ইসলাম সাধু ভাই, মরহুম বেলায়েত হোসেন, মরহুম আব্দুল হালিম আকাশ, মরহুম শাহীন চৌধুরী, মরহুম ফজলে চাচা, মরহুম হুমায়ুন কবির, মরহুম কাজী লতিফের স্ত্রী, এম এ কাশেমের স্ত্রী, মালিক সাহেবের ছেলে, ওয়াহিদ ভার তাহিরের মা সহ সকল মৃতের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া করা হয়।বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সমৃদ্ধশালী হবার জন্য বিশেষ মোনজাত করা হয়।  

বক্তারা বলেন, ফ্রান্স আওয়ামী লীগকে অচল করার জন্য একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে সক্রিয়। তারা নেতৃবৃন্দের মধ্যে দ্বন্দ্ব লাগিয়ে একতরফা নেতা বনে রয়েছে। এসব নেতা দিনের বেলা এক কাজ করে আর রাতের বেলা তাদের অন্য চেহারা দেখা যায়। স্বার্থের জন্য তারা সব ধরনের খারাপ কাজ করতে পারে।

কমীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তারা নৈশ অভিযানে যায় উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, আগের সে দিন নাই। এখন কমীরা অনেক সচেতন হয়েছে। তাদের অন্ধকারে রেখে নিজেদের আখের গোছানোর চিন্তা করলে তা ভুল হবে। অবিলম্বে নতুন সম্মেলনের মাধ্যমে তাদের বয়কট করার আহবান জানান বক্তারা।

সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে নতুন করে কমিটি না করা পর্যন্ত একটি সমন্বয় পরিষদ গঠন করা হয়। ফ্রান্স আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান নেতা সুনামউদ্দিন খালেককে আহবায়ক করে নয় সদস্যের সমন্বয় পরিষদ গঠন করা হয়। সমন্বয় পরিষদের অন্য সদস্যরা হলেন, ওয়াহিদ ভার তাহের, সালেহ আহমেদ চৌধুরী, শাহনেওয়াজ রশীদ রানা, মোহাম্মদ আতিকুজ্জামান, জসিম উদ্দিন ফারুক, হাসান সিরাজ, নুরুল আবেদীন ও আশরাফুল ইসলাম।

print

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.