শনিবার , 20 অক্টোবর 2018
ব্রেকিং

কাতার বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতীয় শোক দিবস ২০১৮ পালিত

এম এ সালাম কাতার প্রতিনিধিঃ

বিনম্র শ্রদ্ধার সাথে ১৫ই আগস্ট কাতার বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার মধ্য দিয়ে দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। দূতাবাস প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামমুখর জীবন, আদর্শ ও কর্ম সম্পর্কিত একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমাদের সভাপতিত্বে ও প্রথম সচিব (পাসপোর্ট ও ভিসা) নাজমুল হাসান সোহাগের সঞ্চালনায় দূতাবাসের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ ও কাতারে বসবাসরত বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি ওই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

আলোচনা অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করা হয়, এরপর বঙ্গবন্ধু, তাঁর সহধর্মিনী, শিশুপুত্র শেখ রাসেলসহ ১৫ই আগস্টের বর্বর হত্যাকাণ্ডে শাহাদাৎ বরণকারী অন্যান্য শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশে এক মিনিট নীরবতা পালন ও রাষ্ট্রদূতের নেতৃত্বে দূতাবাসের পক্ষ থেকে ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, শ্রমিক লীগ, যুবলীগ, নবীন লীগ কাতার শাখার নেতৃবৃন্দ সারিবদ্ধভাবে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী অনুষ্ঠানে পাঠ করে শোনানো হয়। দূতাবাসের কাউন্সেলর ড. সিরাজুল ইসলাম, শ্রম কাউন্সিলর কাজী জাবেদ ইকবাল, শ্রম প্রথম সচিব রবিউল ইসলাম, প্রথম সচিব মাহবুর রহমান।

আলোচনায় রাষ্ট্রদূত বলেন স্বাধীন বাংলাদেশ বিনির্মাণে জাতির জনকের অসামান্য আত্মত্যাগ এবং অবিস্মরণীয় ও একক নেতৃত্বের কথা গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। উল্লেখ করেন, স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু যখন একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে পুনর্গঠনে আত্মনিয়োগ করেছেন ঠিক তখনই স্বাধীনতাবিরোধী-যুদ্ধাপরাধী চক্র জাতির পিতাকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করে যা মানব সভ্যতার ইতিহাসে একটি জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড হিসেবে বিবেচিত।

print

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.