মঙ্গলবার , 18 ডিসেম্বর 2018
ব্রেকিং

বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে-ইইউ পার্লামেন্ট

বেলজিয়াম:বাংলাদেশে বিরোধী রাজনীতিবিদ ও গনমাধ্যমের ওপর সরকারের আগ্রাসী আচরনে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট একটি প্রস্তাব পাশ হয়েছে।একই সঙ্গে সরকারের কাছে দাবী জানিয়েছে অতিসত্বর মানবাধিকার লঙ্ঘনের মতো কার্যকলাপ বন্ধ করার জন্য।গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের আসন্ন নির্বাচন ও সাম্প্রতিক ইস্যুতে ফ্রান্সের ষ্টারবোর্জতে ইইউ পার্লামেন্ট একটি রেজুলেশন নেওয়া হয়েছে।ইইউ পার্লামেন্টর দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে বাংলাদেশে বর্তমান বিরোধীদলীয় নেতা,গনমাধ্যম,ছাত্র ও আন্দোলনকারীদের ওপর সরকার আগ্রাসী আচরন করছে যা মানবাধিকার লঙ্ঘন।এ নিয়ে গভীর উদ্দেগ প্রকাশ করছে ইইউ পার্লামেন্ট।বাংলাদেশ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও সরকারের কাছে দাবী জানানো হয়েছে মানবাধিকার লঙ্ঘনের মত এসব আচরন অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। ওই বিবৃতিতে রাজনৈতিকভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বিভিন্ন মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিরোধী দলীয় নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিষয়েও বার্তা দিয়েছে বিশ্বের এই বৃহত্তম পার্লামেন্ট। এছাড়া বিচারবহির্ভুত হত্যা জোরপূর্বক নিখোঁজ হওয়াদের প্রতিটি ঘটনায় আন্তর্জাতিক মানের স্বাধীন তদন্ত করতে হবে।এসব ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করে বিচারের আওতায় আনার দাবী ও করা হয়েছে।এছাড়া বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহীঙ্গাদের জন্য আন্তর্জাতিক দাতাগোষ্ঠীদের প্রয়োজনীয় আর্থিক সহায়তা অব্যাহত রাখতে আহবান জানিয়েছে ইইউ পার্লামেন্ট।

বিতর্কে অংশ নিয়ে অস্ট্রিয়ার রাজনীতিক জোসেফ ভাইদেনহোলজার বলেন,বাংলাদেশের আসন্ন নির্বাচনে বিরোধী দলের নেত্রী খালেদা জিয়া অংশ নিতে পারবেন না। বিরোধীরা অভিযোগ করেছে, তাঁকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তিনি বাংলাদেশের সরকারের প্রতি সহায়ক পরিবেশ তৈরির আহ্বান জানান, যেখানে মানুষ ভয়হীনভাবে মতপ্রকাশ করতে পারে এবং সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগের প্রস্তুতি নিতে পারে।

ইতালির রাজনীতিক ইগনাসিও করাও মানবাধিকার পরিস্থিতির দিক থেকে বাংলাদেশকে ফিলিপাইন ও সৌদি আরবের সঙ্গে তুলনা করেন। তিনি গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখার জন্য অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের আহ্বান জানান।

print

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.