রবিবার , 8 ডিসেম্বর 2019
ব্রেকিং

চলে গেলেন ফ্রান্স প্রবাসী খ্যাতিমান আলোকচিত্রী আনোয়ার হোসেন

ঢাকার একটি হোটেল থেকে খ্যাতিমান আলোকচিত্রী জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী চিত্রগ্রাহক আনোয়ার হোসেনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

রাজধানীর পান্থপথে হোটেল ওলিও’র একটি কক্ষে শনিবার সকালে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।

সম্প্রতি ফ্রান্স থেকে দেশে আসেন আনোয়ার হোসেন।

শেরেবাংলা থানার এএসআই তপন কুমার সরকার যুগান্তরকে জানান, গত ২৮ নভেম্বর তিনি হোটেল হোটেল ওলিও’র ৮০৯ নম্বর কক্ষে উঠেন।

শনিবার সকালে হোটেল কক্ষে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। সুরতহাল শেষে তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হবে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, ধারণা করা হচ্ছে খ্যাতিমান এই আলোকচিত্রী স্ট্রোক করে মারা গেছেন।

আনোয়ার হোসেন বাংলাদেশের আন্তর্জাতিকমানের একজন আলোকচিত্রী। তিনি ১৯৪৮ সালের ৬ অক্টোবর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন।

১৯৬৭ খ্রিস্টাব্দে মাত্র দুই ডলার ( ৩০ টাকা) দিয়ে কেনা প্রথম ক্যামেরা দিয়ে তার আলোকচিত্রী জীবনের শুরু। পরবর্তীতে ২০ বছর আলোকচিত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশকে আবিষ্কারের চেষ্টা করেছেন।

সূর্যদীঘল বাড়ি (১৯৭৯), এমিলের গোয়েন্দা বাহিনী (১৯৮০), পুরস্কার (১৯৮৩), অন্য জীবন (১৯৯৫) ও লালসালু (২০০১) সিনেমায় শ্রেষ্ট চিত্রগ্রাহক হিসেবে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন।

print

One comment

  1. আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্রী ও চলচ্চিত্র ভিডিওগ্রাফার আনোয়ার হোসেন বিদেশ তথা ফ্রান্সের মাটিতে ছিলেন বাঙ্গালীদের সবার গর্ব ও অহঙ্কার । বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে তাঁর অসামান্য অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে ।

    একটি বিষয় আলোকচিত্রীর জন্য খুবই কষ্ট, ক্ষোভ ও বেদনাবহ ছিল যে, তাঁরই প্রিয় ছাত্র চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ তাঁর পূর্বেই সড়ক দুর্ঘটনায় ইহলোক ত্যাগ করেছেন ! এবার তাঁর নিজের ইহলোক ত্যাগের মধ্যদিয়ে তাঁর সে কষ্ট ও ক্ষোভের আপাত সমাপ্তি ঘটলো – কিন্তু আমরা যারা রয়ে গেলাম তাদের বেদনার্ত মনের গুপ্ত আর্তনাদ মোচন হবে কীভাবে !! ….

    আনোয়ার হোসেনের মহাপ্রয়াণের এ ক্ষতি হয়তো কোনদিনই আর পূরণ হবে না – কিন্তু তাঁর তোলা নির্বাক ছবিগুলো সবাক হয়ে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে কথোপকথন করতে থাকবে অনন্তকাল ।

    যেলোকেই যান না কেন আলোকচিত্রী আনোয়ার হোসেন আমাদের সবার হৃদয় আসনে থাকবেন শতাব্দীজুড়ে – এই কামনায়, এই মহান শিল্পীর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি এবং তাঁর আত্মার শান্তি ও রুহের মাগফেরাত কামনা করছি ।

    হযরত আলী খান
    কাউন্সেলর ও হেড অব চ্যান্সেরি
    বাংলাদেশ দূতাবাস, প্যারিস ।

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: