শুক্রবার , 20 সেপ্টেম্বর 2019
ব্রেকিং

ভার্জিনিয়ায় বাইটপোর বার্ষিক পিকনিক ও ফাদার’স ডে অনুষ্ঠিত

রফিকুল ইসলাম আকাশ, যুক্তরাষ্ট্র

গত ১৬ ই জুন রবিবার উডব্রীজ ভার্জিনিয়ার লিসিভানিয়া পার্কে বাংলাদেশি আমেরিকান ইনফরমেশন টেকনোলজি প্রফেশনালস্ অরগানাইজেশন (বাইটপো) র আয়োজনে ফাদারস্ ডে ও বার্ষিক পিকনিক-২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সারাদিনব্যাপি সবুজ শ্যামল ঘেরা পার্ক প্রবাসী বাংলাদেশিদের পদচারনায় মুখরিত ছিল।

সকালের নাস্তা থেকে শুরু করে, বারবিকিউ , ফলমুল, গরু ও খাশির মাংশ, চিংড়ী লাউ, সালাদ এমনকি পায়েশ রসমালাই আর পান সুপারি মিলিয়ে মুখরোচক খাবারে পরিপূর্ণ ছিল সারাদিন। বাচ্চাদের ও মহিলাদের খেলাধুলা , বাবা দিবসে বাবাদের সম্মাননা সহ গানে গানে মুখরিত ছিল অনুষ্ঠান প্রাঙ্গন । সকাল থেকেই শত শত প্রবাসী বাঙালীরা পিকনিক প্রাঙ্গনে আসতে থাকেন , এ যেন প্রবাসের মাটিতে এক টুকরো বাংলাদেশ । আনুষ্ঠানিকভাবে বাইটপোর এ পথচলা উদ্বোধন করেন ই লার্নিং বই লেখক ও নলেজ ক্যারিয়ার জ্ঞানবাহন প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ডক্টর বদরুল হুদা খান । এসময় বাংলাদেশ দুতাবাস প্রতিনিধি, গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসির বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধি, সম্মানিত গুরুজন , লেখক কবি সাহিত্যিক, সম্পাদক, সাংবাদিক ও বিশিষ্ট কন্ঠশিল্পী ডক্টর সীমা খান উপস্থিত ছিলেন। এরপর বিভিন্ন খেলাধুলার পুরস্কার ও রাফেল ড্র পুরস্কার বিতরন করা হয়।

আনুষ্ঠানিকভাবে বাইটপোর অন্যতম সদস্য সামসুদ্দিন মাহমুদ, বাইটপোর সদস্যদের সকলকে পরিচয় করিয়ে দেন।সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বাইটপোর মিশন ও ভিশন আলোকপাত করা হয়।বাইটপোর সকল সদস্য নিজেদের পরিচয় দিয়ে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন । বক্তব্য রাখেন সামছুদ্দীন মাহমুদ, মোহাম্মেদ রশীদ, সাইফুল্লাহ খালেদ, তারিকুল ইসলাম অশ্রু, হাবিবুল্লাহ ভুঁইয়া কচি, মোঃ নিজামউদ্দিন, মোঃ মিজানুর রহমান, মোহাম্মদ হায়দার, আবদুল মোমেন, আয়ান রশীদ, রফিকুল ইসলাম আকাশ, সুমন কর্মকার, তৈয়বুর হাসান, তানভীর হায়দার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের উদ্ভোধক ডঃ বদরুল খান তার বক্তব্যে বাংলাদেশী আইটি প্রফেশনালদের মার্কিন যুক্তরাষ্টের বিভিন্ন কর্পোরেট অফিস এবং ইউ এস গভর্নমেন্টের অফিসে কাজ করার প্রশংসা করে বলেন, গার্মেন্টস সেক্টরের পরে বাংলাদেশের আইটি সেক্টর সবচেয়ে সম্ভাবনাময় খাত হিসাবে আবির্ভুত হয়েছে। আইটি প্রফেশনালরা তাদের অভিজ্ঞতা দিয়ে কেবল কমিউনিটিতে নয় বাংলাদেশের আইটি খাতকেও বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করতে পারে। আগামী দিনে আরো বাংলাদেশীদের একটি বিশাল অংশ এ সেক্টরে প্রবেশ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এই প্রফেশনালরা দেশের রেমিটেন্সে বিশেষ অবদান রাখতে সক্ষম হবেন । সাথে সাথে বাংলাদেশের আইটি খাত উন্নয়নেও বিশেষ ভুমিকা রাখবে। এ বিষয়ে বাইটপো বাংলাদেশ সরকারের সাথে একটি সেতুবন্ধন হিসাবে কাজ করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বাইটপোর সকল কাজে বিশেষ সহায়তা প্রদানের ও আশ্বাস দেন। জনাব সামছুদ্দীন মাহমুদ তার বক্তব্যে, যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন আইটি প্রফেশনালদের একই প্লাটফর্মে নিয়ে এসে সংগঠনের কার্যক্রম, আদর্শ ও উদ্দেশ্যের বর্ণনা দিয়ে বলেন, আগামী দিনে সংগঠনের কার্যক্রম কেবল নিজেদের মধ্যেই নেটওয়ার্কিং বৃদ্ধি ও পারষ্পরিক সহায়তার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবেনা, কমিউনিটির বিভিন্ন কার্যক্রমে সহায়তা এবং সর্বোপরি আইটি সেক্টরে বাংলাদেশ সরকারকে বিভিন্ন কাজে সহায়তা প্রদানের ও আশ্বাস দেন। এছাড়া আগামীতে বাইটপোর আরো তিনটি অনুষ্ঠানের ঘোষনা প্রদান করেন। অনুষ্ঠানগুলো হচ্ছে যথাক্রমে আগামী বছর ২১ জুন ২০২০ “বার্ষিক পিকনিক ও ফাদার’স ডে উদযাপন”, আগামী অক্টোবর ২০১৯ “বাইটপো সকার গোল্ডকাপ টুর্ণামেন্ট” এবং জানুয়ারী ২০২০ “আইটি স্টার এওয়ার্ড” প্রদান । পরবর্তিতে এ বিষয়ে আরো বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন করা হবে। অনুষ্ঠানে দ্বিতীয় পর্বে ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের ও মহিলাদের খেলাধুলায় সহায়তা করেন আয়ান রশীদ ও নুর মোহাম্মদ, এর পর ফাদার’স ডের বিশেষ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন তারিকুল ইসলাম অশ্রু। তাকে সহায়তা করেন হাবিবুল্লাহ ভুইয়া ও নিজামউদ্দীন। বারবিকিউতে সহায়তা করেন সাইফুল্লাহ খালেদ, মোহাম্মদ হায়দার, আবদুল মোমেন, তৈয়বুর হাসান, মেজবানী ও অন্যান্য রান্নায় সহায়তা করেন মোহাম্মদ রশীদ, মিজানুর রহমান, সুমন কর্মকার, রেদওয়ান চৌধুরী বোরহান আহমেদ, সরফওয়াজ ও স্যাম রিয়া(মাহমুদ ভাবী)।

ফটোগ্রাফী ও ভিডিওগ্রাফিতে সহায়তা করেন রফিকুল ইসলাম আকাশ ও দেওয়ান বিপ্লব। মিউজিক ও সাউন্ড সিস্টেমে সহায়তা করেন উজ্জল হোসেন ও তুশার রহমান। র‌্যাফেল ড্র তে সহায়তা করেন ফাইয়াজ মাহমুদ ও ফারিয়া খালেদ। র‌্যাফেল ড্রতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কার ছিল যথাক্রমে ২২ ক্যারেট স্বর্ণের চেইন, গেস হাতঘড়ি ও আন ক্লেইন হাতঘড়ি। পুরস্কারগুলি স্পন্সর করেন যথাক্রমে এজেএম হোসেন, কবির পাটোয়ারী, ও মাসুদ আহসান। ফাদার’স ডের কেক কাটেন সর্বজন শ্রদ্ধেয়, সংগঠনের সদস্য মিজানুর রহমানের বাবা মোঃ সিরাজুল ইসলাম, সাইফুল্লাহ খালেদের বাবা রহমান বিশ্বাস ও তানভীর হায়দার এর বাবা আবুল ফজল। বাবা দিবসে সকল বাবাদের সন্মানে একটি বিশেষ বাইটপো লোগোযুক্ত কফিকাপ উপহার প্রদান করা হয়। ফটোক্রেডিট: দেওয়ান বিপ্লব

print

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.