রবিবার , 15 সেপ্টেম্বর 2019
ব্রেকিং

বিনম্র শ্রদ্ধায় পর্তুগালে একুশ উদযাপন

 

3সেলিম উদ্দীন ,নবকন্ঠ ব্যারো প্রধান লিসবন পর্তুগাল-

১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর ইউনেস্কোর এক ঘোষণায় ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবে স্বীকৃতি পায়।বাঙালির এই আত্মত্যাগের দিনটি এখন আর বাংলাদেশেই সীমাবদ্ধ নেই। ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে সারা বিশ্বে। বাঙালির ভাষার সংগ্রামের একুশ এখন বিশ্বের সব ভাষাভাষীর অধিকার রক্ষার দিন।অনুষ্ঠানে ফুল দিয়ে প্রথমে শ্রদ্ধাঞ্জলী জানান পর্তুগালে অবস্তিত বাংলাদেশ দুতাবাসের মান্যবর রাষ্টদূত ইমতিয়াজ আহমেদ , প্রেসিডেন্ট জুন্থা দো আরেরৈশ , লিসবন সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র এর পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান কার্লস সন্তারা , ভারতীয় দুতাবাসের রাষ্টদূত , সেনেগাল দুতাবাসের রাষ্টদূত সহ পর্তুগাল সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ।এর পরপর ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করেন বাংলাদেশ আওয়ামিলীগ পর্তুগাল শাখার সভাপতি জহিরুল আলম জসিম , উপদেষ্ঠা মাহবুব আলম , সহ সভাপতি ফরহাদ মিয়া ,সহ সভাপতি এম.এ,খালেক , সাধারণ সম্পাদক শওকত ওসমান , যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ,কে , রাকিব , , সাংগঠনিক সম্পাদক মিথুন ,আওয়ামিলীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ , প্রচার সম্পাদক মুজিবুর মোল্লা , দেলোয়ার হোসাইন, রনি হোসাইন, সাহেদ আহমেদ সহ আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ গণ। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল পর্তুগাল শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজরুল ইসলাম সিকদার , সাধারণ সম্পাদক মহিন উদ্দীন , সহ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কাজী এমদাদ , যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইউসুফ তালুকদার ,যুগ্ম সম্পাদক আমীর সোহেল(২) , আব্দুস সালাম ,লিটন , রাজু , মকবুল সহ অনেকেই উপস্তিত ছিলেন।বৃহত্তর নোয়াখালি এসোসিয়েশান-এসোসিয়েশানের সভাপতি জাহাঙ্গির আলম ছাড়াও এ কে আজাদ,নজ্রুল ইসলাম সুমন ও রনি মোহাম্মেদ উপস্থিত ছিলেন।জনপ্রিয় অনলাইন পত্রিকা নবকন্ঠের পক্ষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন পর্তুগালের নবকন্ঠের প্রধান রিপোর্টার এবং বাংলা টিভির সিনিয়র সাংবাদিক সেলিম উদ্দীন এর নেতৃত্বে উপস্তিত ছিলেন নবকন্ঠ পাঠক ফোরাম পর্তুগালের সদস্যবৃন্দ। এ সময় আরো উপস্তিত ছিলেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল চ্যানেল আই এর পর্তুগাল প্রতিনিধি মোহাম্মেদ নুরুল্লাহ। পরে একে একে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বৃহত্তর ফরিদপুর এসোসিয়েশন , পর্তুগাল বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ এসোসিয়েশন(PBFA ), বিয়ানীবাজার প্রবাসী কল্যাণ সমিতি সহ বিভিন্ন সংগঠন।

print

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.